ঢাকাবুধবার , ১৭ জানুয়ারি ২০২৪
  1. #টপ৯
  2. #লিড
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. ইচ্ছেডানা
  8. উদ্যোক্তা
  9. ক‌রোনা মহামা‌রি
  10. কৃষি
  11. ক্যাম্পাস
  12. খেলাধুলা
  13. গণমাধ্যম
  14. চাকুরীর খবর
  15. জাতীয়
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অ্যালেনের ছক্কার রেকর্ড ও ঝড়ো সেঞ্চুরিতে হোয়াইটওয়াশ পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক
জানুয়ারি ১৭, ২০২৪ ১১:০৬ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বাইশ গজে নেমেই পাকিস্তানি বোলারদের বিপক্ষে তাণ্ডব চালাতে শুরু করেন ফিন অ্যালেন। কিউই ওপেনার স্পর্শ করেন আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ছক্কার রেকর্ড। ঝড়ো সেঞ্চুরিতে নিউজিল্যান্ডের হয়ে টি-টুয়েন্টিতে সবচেয়ে বড় ইনিংসের মালিকও বনে যান। অ্যালেনের ব্যাটিংটাই গড়ে দেয় পার্থক্য। ব্ল্যাক ক্যাপসদের বিপক্ষে ৪৫ রানের পরাজয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে হেরে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে পাকিস্তান।

ডানেডিনে বুধবার টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামা স্বাগতিকরা পায় ৭ উইকেটে ২২৪ রানের বড় স্কোর। জবাবে পাকিস্তান২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৭৯ রানেই থামে।

ফিন অ্যালেন ৬২ বলে ১৩৭ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলার পথে ৫ চারের পাশাপাশি হাঁকান ১৬টি ছক্কা। আফগানিস্তানের হজরতউল্লাহ জাজাই ২০১৯ সালে দেরাদুনে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ১৬২ রানের ইনিংস খেলার পথে ১৬ ছক্কা হাঁকিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে রেকর্ড গড়েছিলেন। এক ইনিংসে সর্বাধিক ছক্কার সেই রেকর্ড ছুঁলেন কিউই ব্যাটার।

১২ বছর আগের পুরনো আরেকটি রেকর্ডও ভেঙেছেন অ্যালেন। বাংলাদেশের বিপক্ষে ২০১২ সালে ৭২ বলে ১২৩ রানের ইনিংস খেলেছিলেম ব্র্যান্ডন ম্যাককালাম। সেটিই এতদিন ছিল নিউজিল্যান্ডের পক্ষে টি-টুয়েন্টিতে সর্বাধিক রানের ইনিংস। সেই রেকর্ডটাও ১৩৭ রান করে ২৪ বর্ষী ক্রিকেটার নিজের করে নিলেন।

সফরকারীদের সঙ্গে নিউজিল্যান্ডের স্কোরের ৬১.১৬ শতাংশ রান অ্যালেন একাই করেছেন। তার ব্যাট থেকে যেখানে এসেছে ১৩৭ রান, বাকিরা মিলে তোলেন ৭৪ রান।

দলীয় ২৮ রানেই ডেভন কনওয়ের উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। এরপর টিম সেইফার্টকে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ১২৫ রানের জুটি গড়েন অ্যালেন। ২৩ বলে ৩১ রান করে মোহাম্মাদ ওয়াসিমের বলে সাজঘরে ফেরেন সেইফার্ট।

গ্লেন ফিলিপস ১৯ রান করলেও বাকিরা দুই অঙ্কের ঘরেই পৌঁছাতে পারেননি। ২১ রান যোগ করতেই শেষ ৪ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড।

পাকিস্তানের পক্ষে হারিস রউফ ২ উইকেট পেলেও ছিলেন সবচেয়ে খরুচে। তার করা চার ওভারেই আসে ৬০ রান।

রানের গতিকে সচল রাখার চেষ্টা করলেও বড় স্কোর তাড়ায় তা যথেষ্ট প্রমাণে সফরকারীরা ব্যর্থ হয়। দুই ওপেনার সাইম আইয়ুব ১০ ও মোহাম্মদ রিজওয়ান ২৮ রান করে ড্রেসিংরুমে ফেরেন। ফখর জামান ১৯ রানের বেশি করতে পারেননি।

তিনি নামা সাবেক অধিনায়ক বাবর আজম পান ফিফটি। ৩৭ বলে ৮ চার ও এক ছক্কায় ৫৮ রান করে ইশ সোধির বলে গ্লেন ফিলিপসের তালুবন্দি হন।

অতিথি দল ১৩৪ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর বড় ব্যবধানে হারের মুখে পড়ে। শেষদিনে মোহাম্মদ নেওয়াজের ১৫ বলে ২৮ ও অধিনায়ক শাহিন শাহ আফ্রিদির ১০ বলে ১৬ রানের ইনিংসে স্কোর আরেকটু বড় হয়।

কিউইদের পক্ষে ২৯ রানের বিনময়ে ২ উইকেট নেন টিম সাউদি।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।