ঢাকাশনিবার , ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. #টপ৯
  2. #লিড
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আন্দোলন
  7. ইচ্ছেডানা
  8. উদ্যোক্তা
  9. ক‌রোনা মহামা‌রি
  10. কৃষি
  11. ক্যাম্পাস
  12. খেলাধুলা
  13. গণমাধ্যম
  14. চাকুরীর খবর
  15. জাতীয়

বিএনপির মিছিলে গুলি চালানো সেই কনক ডিবি থেকে ক্লোজড

দেশইনফো২৪.কম
সেপ্টেম্বর ১০, ২০২২ ৯:০৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নারায়ণগঞ্জে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষচলাকালে চাইনিজ রাইফেল হাতে গুলি চালানো ডিবি পুলিশের এসআই মাহফুজুর রহমান কনককে ক্লোডজ করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা পুলিশের পরির্দশক ফখরুদ্দিন ভূইয়া।

নারায়ণগঞ্জের গোয়েন্দা পুলিশ পরির্দশক ফখরুদ্দিন ভূইয়া এটাও নিশ্চিত করেন যে, কনকের বিরুদ্ধে তদন্তও তো হবে। তবে পুলিশ কক্ষ থেকে কোনো তদন্ত কমিটি হয়েছে কি না তা জানেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। আর জেলা পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তারা বিষয়টি নিয়ে কিছুই বলছেন না।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তাফা রাসেলসহ একাধিক কর্মকর্তা ‘কিছুই জানেন না’ বলে ফোন কেটে দেন।

তবে জেলা পুলিশের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, ওইদিনের ঘটনায় গোয়েন্দা পুলিশের এস আই মাহফুজুর রহমান কনককে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে রাখা হয়েছে।

একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, সংঘর্ষের আগে মাহফুজ কনক অন্য ডিবি পুলিশদের সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছেন। কনকের ডান হাতে একটি লাঠি আর বাম হাতে ওয়্যারলেস। আরেক অংশে দেখা যায় কনকের হাতে চাইনিজ রাইফেল। তিনি গুলি করছেন বিএনপির নেতা-কর্মীদের দিকে।

গত বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) বিএনপির ৪৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলীয় র‌্যালিতে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। কনক সেই ঘটনার চার বা পাঁচ দিন আগে ভোলা থেকে নারায়ণগঞ্জে বদলি হয়ে আসেন। তিনি ভোলায় থাকাকালেও পুলিশের গুলিতে বিএনপির মিছিলে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে সেই গুলি কে বা কারা ছুড়েছিল, সেটি প্রকাশ পায়নি।

সেদিনের ঘটনার ভিডিও ও স্থিরচিত্রে দেখা যায়, বিএনপির নেতা-কর্মীরা যখন পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়ছিলেন, তখন কনক দাঁড়িয়ে, নিচের দিকে খানিকটা ঝুঁকে এবং হাঁটু গেড়ে সরাসরি নেতা-কর্মীদের দিকে গুলি করছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে- মিছিলের পেছন থেকে পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করলে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। এ সময় বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশও পাল্টা টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। বিএনপির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের মধ্যেই পুলিশ লাইনসের কনস্টেবল লিটনের কাছ থেকে তার নামে ইস্যুকৃত চাইনিজ রাইফেল নিয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই মাহফুজুর রহমান কনক গুলি লোড করে বিভিন্ন অঙ্গ-ভঙ্গিতে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর ছোড়ে। ওই সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন যুবদল কর্মী শাওন প্রধান।

ঘটনার পর থেকে বিএনপি দাবি করে আসছে- এসআই কনকের গুলি বুকে বিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন শাওন।

একজনের অস্ত্র আরেকজন ব্যবহার করতে পারেন না বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ পুলিশের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা। তবে তিনি নাম প্রকাশে রাজি হননি।

নারায়ণগঞ্জ জজ কোর্টে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মনিরুজ্জামান বুলবুল বলেন, ‘আইনে বলা হয়েছে যে পুলিশ সদস্যের দায়িত্বে অস্ত্র থাকবে, তিনি আত্মরক্ষার্থে তা ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু একজনের অস্ত্র আরেকজন ব্যবহার করতে পারেন না।’

জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) আমীর খসরু বলেন, আমি কিছু জানি না। একই কথা জানিয়ে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) জাহেদ পারভেজ বলেন, আমার কাছে কোনো তথ্য নেই।

সূত্র : বাংলা ভিশন

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।